ভাই'রাল হওয়া সেই ই'মাম এবার পেলেন ভাসমান ম'সজিদ

সম্প্রতি ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে বাঁধ ভেঙে তলিয়ে যায় সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজে'লার প্রতাপনগর ইউনিয়নের মানুষের অসংখ্য ঘর-বাড়ি। শুধু তাই নয়, পানি বৃদ্ধির ফলে ওই ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের অধিকাংশ এলাকা বিলীন হয়ে যায় নদী গর্ভে। বিলীন হয়নি শুধু হাওলাদার বাড়ি জামে ম'সজিদটি। নদীর পানির জোয়ার এলেই সাঁতরে ম'সজিদে যেতে হয় ই'মাম হাফেজ মইনুর রহমানকে। উপায় না দেখে সাঁতরেই ম'সজিদে নামাজ ও আজান দিতেন ই'মাম।

এ নিয়ে গেল ক’সপ্তাহ আগেই তার এমন একটি ভিডিও সারাদেশসহ বিশ্বের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ভাই'রাল হন ওই ম'সজিদের ই'মাম হাফেজ মইনুর রহমান। । এ বিষয়টি নজরে আসে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ডু সামথিং ফাউন্ডেশনের। তারা ম'সজিদের ই'মামকে নৌকা ও নগদ টাকা উপহার দিয়ে সহায়তা করেছে।

এরপর পানিতে ডুবে থাকা সেই ম'সজিদের পাশে দেশের প্রথম এবার ভাসমান জামে ম'সজিদ চালু হলো। মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) জোহরের নামাজের সময় ভাসমান ম'সজিদটি উদ্বোধন করা হয়। ভাসমান ম'সজিদটির উদ্বোধন করেন চট্টগ্রামের আলহাজ শামসুল হক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী নাছির উদ্দিন। ওই ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে মু'সল্লিদের দুঃখ দুর্দশা লাঘবে চট্রগ্রামের আলহাজ্ব শামসুল হক ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে প্রায় পাঁচ লাখ টাকা ব্যয়ে ভাসমান ম'সজিদটি ই'মাম হাফেজ মইনূর ইস'লামের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এছাড়াও ম'সজিদে রয়েছে আজান দেওয়ার জন্য মাইক সাউন্ড সিস্টেম। ম'সজিদে ৮ টি কাতারে ৫৫ থেকে ৬০ জন মু'সুল্লি এক জামায়াতে নামাজ আদায় করতে পারবেন। ভাসমান ম'সজিদের নৌকাটির দৈর্ঘ্য ৫০ ফুট ও ১৬ ফুট প্রস্থ। ম'সজিদটিতে রয়েছে পানির ট্যাংক, ট্যাব সিস্টেম ওযু করার সুবিধা। রয়েছে স্যানিটেশন ব্যবস্থা। ভাসমান ম'সজিদটি যাতে স্থির থাকে সে জন্য নৌকার দুই ধারে ২৫০ লিটারের ৪ টা করে ৮ টি ড্রাম বাঁ'ধানো হয়েছে।

ম'সজিদের ই'মাম মইনুর রহমান জানান, জামে ম'সজিদটি এখন নামাজ পড়ার সম্পূর্ণ অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এর দেওয়াল ও মেঝে সম্পূর্ণ ফেটে গেছে এবং চারপাশ দিয়েই খাল উঠে একটি ভ'য়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। তাই ভাসমান এই ম'সজিদেই নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এ বিষয়ে প্রকৌশলী নাছির উদ্দিন গণমাধ্যমকর্মীদের জানান- ম'সজিদটি আরো সম্প্রসারণ করার পরিকল্পনা রয়েছে। উপকূলীয় প্রতাপনগর ইউনিয়নটি দীর্ঘ দুই বছর ধরে খোঁলপেটুয়া নদীর জোয়ার ভাটায় প্লাবিত অবস্থায় রয়েছে।

Back to top button