আতঙ্কে ব্যাংক থেকে ৫০ হাজার কোটি টাকা তুলে নিয়েছেন গ্রাহকরা

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহম'দ কায়কাউস জানিয়েছেন, ‘ব্যাংকে টাকা নেই বা থাকবে না’ এমন গুজব চাউর হতেই আতঙ্কে ব্যাংক থেকে ৫০ হাজার কোটি টাকা তুলে নিয়েছেন গ্রাহকরা। বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) তিন দিনব্যাপী বার্ষিক উন্নয়ন সম্মেলনের সমাপনী অধিবেশনে শনিবার (৩ ডিসেম্বর) আমন্ত্রিত অ'তিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. আহম'দ কায়কাউস বলেন, ‘ব্যাংকে টাকা নেই, এটা বলার পর সত্যিকারের একটা ইমপ্যাক্ট হয়েছিল। প্রায় ৫০ হাজার কোটি টাকা মানুষ উইথড্র করেছে। বাংলাদেশ ব্যাংক কিন্তু তাতে বাধা দেয়নি। এখন সবাই টের পেয়েছে, আরে! এটা তো ভুল করেছি। এখন সবাই টাকা ফেরত দিতে শুরু করেছে। আপনারা খোঁজ নিয়ে দেখেন। এখন কিন্তু সবাই আবার ফেরত দিচ্ছে।’

উল্লেখ্য, গত মাসের (নভেম্বর ২০২২) শুরুর দিকে ‘ব্যাংকে টাকা নেই বা থাকবে না’ এমন গুজব যখন ছড়িয়ে পড়ে, তখন অনেক গ্রাহকের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করিছল। কেউ কেউ তুলেও নিতে শুরু কছিল ব্যাংকে গচ্ছিত আমানত। গুজবের ডালপালা যখন বেশ জেঁকে বসার চেষ্টা করছিল, তখনই বি'জ্ঞপ্তি দিয়ে মানুষকে সচেতন করার চেষ্টা করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

গত ১৩ নভেম্বর বাংলাদেশ ব্যাংক জানায়, ‘ব্যাংকে গচ্ছিত আমানত নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। বাংলাদেশের ব্যাংকব্যবস্থা অ'ত্যন্ত সুদৃঢ় অবস্থায় রয়েছে। দেশের ব্যাংকগুলোতে রক্ষিত আমানত সম্পূর্ণ নিরাপদ। এর পরও বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাংকের আমানত তুলে নেওয়ার জন্য ষড়যন্ত্রমূলক খবর প্রচার হচ্ছে। বাংলাদেশের ব্যাংকিং ব্যবস্থা অ'ত্যন্ত সুদৃঢ় অবস্থায় রয়েছে। ব্যাংকিং ব্যবস্থায় তারল্যের কোনো সংকট নেই।

Back to top button