অজয়কে বিয়ে করায় বাবা ৪ দিন আমা'র সঙ্গে কথা বলেনি : কাজল

১৯৯৯ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি অজয় দেবগনের সঙ্গে সাত পাকে বাঁ'ধা পড়েন কাজল। যাতে নাকি বিন্দুমাত্র সায় ছিল না অ'ভিনেত্রীর বাবা সমু মুখোপাধ্যায়ের। সম্প্রতি এ বিষয়েই এক সাক্ষাৎকারে মুখ খুলেছেন সমু-তনুজাকন্যা।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে কাজল বলেন, তিনি যখন অজয় দেবগনকে বিয়ে করেন, তখন তাঁর বয়স মাত্র ২৪। সমু মুখোপাধ্যায় চেয়েছিলেন, তাঁর মে'য়ে এত অল্প বয়সে বিয়ে না করে ক্যারিয়ারে মন দিক। তবে মে'য়ের সিদ্ধান্তে তাঁর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন তনুজা।

কাজলের কথায়, বাবা ২৪ বছর বয়সে আমা'র বিয়ের সম্পূর্ণ বি'রুদ্ধে ছিলেন, তিনি চেয়েছিলেন আমি বিয়ের আগে আরো অনেক কাজ করি। যে কারণে চার দিন বাবা আমা'র সঙ্গে কথা পর্যন্ত বলেননি। তবে সে ক্ষেত্রে আমা'র পাশে ছিলেন মা। তিনি বলেছিলেন, আমা'র যেটা ইচ্ছা আমি যেন সেটাই করি। তবে আমা'র বিয়েতে বাবা-মা দুজনই ছিলেন।

জি নিউজের সংবাদ অনুযায়ী কাজল বলেন, আমি আর অজয় কেউই কাউকে বিয়ের প্রস্তাব দিইনি, তবে আম'রা জানতাম যে আম'রা একসঙ্গে কা'টাতে চাই। আমি ভাগ্যবান যে চারপাশের প্রত্যেকেই সব সময় আমা'র পাশেই ছিলেন। তাই আমি যা করতে চেয়েছি ঠিক তা-ই করেছি। আমাকে পুরুষতন্ত্রের মুখোমুখি হতে হয়নি। আবার হয়তো বা আমিও পুরুষতন্ত্রের মুখোমুখি হয়েছি, তবে ঠিক বুঝে উঠতে পারিনি।

তবে নিজের সুন্দরভাবে বেড়ে ওঠার বেশির ভাগ কৃতিত্ব মা তনুজাকেই দিতে চেয়েছেন কাজল। তাঁর কথায়, মায়ের কারণেই বাবা-মায়ের (তনুজা-সমু) আলাদা হয়ে যাওয়ার মতো কঠিন পরিস্থিতিকেও তিনি সামলে উঠতে পেরেছেন।

২২ বছর পার হয়ে গিয়েছে, অজয় দেবগনের সঙ্গে সুখে দাম্পত্য কা'টাচ্ছেন কাজল। তাঁদের দুই সন্তানও রয়েছে যুগ ও নাইসা। অজয়-কাজলের মে'য়ে নাইসা পড়াশোনার জন্য সিঙ্গাপুরে থাকেন। অ'ভিনেত্রী জানান, তাঁকে প্রায়ই মে'য়ের কাছে গিয়ে থাকতে হয়। স্ত্রী'র অনুপস্থিতিতে ছে'লের দেখাশোনা করেন অজয়।

Back to top button