সিনেমা'র আনুমতি না দেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে যা বললেন জয়া

আ'লোচিত ‘হাওয়া’ সিনেমা'র বি'রুদ্ধে বন্যপ্রা'ণী সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা আইনে মা'মলা ও সিনেমাটি প্রদর্শনী বন্ধ চেয়ে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। এছাড়া মোস্তফা সরয়ার ফারুকী' পরিচালিত ‘শনিবার বিকেল’ সিনেমা মুক্তির অনুমতি না দেওয়া নিয়ে প্রতিবাদমুখর চলচ্চিত্র অঙ্গন। সেই প্রতিবাদে এবার শামিল হয়েছেন দুই বাংলার দর্শকপ্রিয় অ'ভিনেত্রী জয়া আহসান।

এসব সিনেমা বন্ধ বা আনুমতি না মেলার বিষয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তিনি। আজ বৃহস্পতিবার (২৫ আগস্ট) ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটিতে ‘বাংলা চলচ্চিত্র বা কন্টটেন্টে সেন্সরশিপের খড়গ: গল্প বলার স্বাধীনতা চাই’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে নির্মাতা, শিল্পী ও কলাকুশলীরা। সেখানে জয়া আহসান প্রশ্ন রেখে বলেন, কোনো শিল্পকলা আসলেই কি কোনো শর্ত মেনে চলতে পারে? কোনো চলচ্চিত্র কি শর্তসাপেক্ষে তৈরি হতে পারে? তাহলে চলচ্চিত্র কেনো?

সব চরিত্র নিয়ম মেপে চলতে থাকলে কোনো ফিকশন নির্মান করা সম্ভব হবে না বলেও জানান তিনি। জয়া বলেন, প্রা'ণ-প্রকৃতি নিয়ে আমা'র নিজের একটা খাঁটি আবেগ আছে। সেই জায়গা থেকে প্রা'ণ-প্রকৃতি নিয়ে আমি আরো বেশি কথা বললো। তাই বলে কি চলচ্চিত্র বন্ধ করতে হবে? বন উজাড় হচ্ছে, দিনের পর দিন পশুপাখির সঙ্গে অমানবিক আচরণ করছে- এগুলোর বেলায় বনবিভাগ বা প্রশাসন কোথায়? চলচ্চিত্রের বেলায় প্রশাসনের এই চাপ কেনো? সব চরিত্র যদি নিয়ম মেপে চলতে থাকে তাহলে তো কোনো ফিকশনই তৈরি হবে না। আম'রা কি তাহলে চলচ্চিত্র নির্মাণ করব না? আম'রা কি তাহলে গল্প বলব না?

এসময় মোস্তফা ফারুকী' নির্মিত ‘শনিবার বিকেল’ প্রসঙ্গে জয়া আহসান বলেন, সিনেমাটি নিয়ে এখন কথা হচ্ছে। এটা নিয়ে আম'রা অ'সুবিধার সম্মুখীন হচ্ছি। হলি আর্টিজানের ঘটনা কি আসলে ঘটেনি? ঘটেছে তো। সেগুলো নিয়ে লেখালেখি হয়েছে। কিছুদিন আগে শাহীন আখতার একটি উপন্যাস রচনা করলেন। সেগুলো কি আম'রা আ'ট'কাতে পেরেছি। চলচ্চিত্রের বেলা কেন এই অ'সুবিধা? হলি আর্টিজানের ঘটনায় এতোটাই ম'র্মাহত হয়েছেন জয়া, যে কারণে নিজের জন্ম'দিন পর্যন্ত পালন করেন না। কারণ তার জন্ম'দিনের দিনটিতেই ঘটনাটি ঘটেছিল। এ বিষয়ে অ'ভিনেত্রী বলেন, আমা'র জন্ম'দিন ১ জুলাই। হলি আর্টিজানের ঘটনা নিয়ে আমি এতোটা ট্রমাটাইজ হয়ে আছি যে, আমা'র জন্ম'দিনটা পালন করতে পারি না।

Back to top button