চো'রের হাত কা'টার আইন আবারও আনছে তা'লেবান!

আ'ফগা'নিস্তানের পুরো নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা হাতে নেয়ার পর অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠন করেছে তা'লেবান। তবে এখনো পূর্ণাঙ্গ মন্ত্রিসভা গঠন করা সম্ভব হয়নি। এছাড়া শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানও পিছিয়েছে।

এদিকে তা'লেবান গোষ্ঠী জানাচ্ছে, মা'র্কিন সাম'রিক অ'ভিযানের আগে তা'লেবানের ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় গঠন করা ‘ধ'র্মীয় মূল্যবোধ প্রচার ও অ'পকর্ম প্রতিরোধ’ মন্ত্রণালয় আবারো তারা গঠন করবে।

মা'র্কিন সংবাদমাধ্যম নিউইয়র্ক পোস্টের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে ভা'রতীয় সংবাদ মাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস। মা'র্কিন সাম'রিক অ'ভিযানের আগে তা'লেবান আমলে ‘ধ'র্মীয় মূল্যবোধ প্রচার ও অ'পকর্ম প্রতিরোধ’ নামের ওই মন্ত্রণালয় পুরুষ সঙ্গী ছাড়া নারীদের বাইরে বের হওয়া এবং গান, বাজনাসহ যে কোনও ধরনের বিনোদনমূলক কর্মকা'ণ্ড নিষিদ্ধ করেছিল।

ওই মন্ত্রণালয় ধ'র্মীয় পু'লিশ নামে এক সংস্থা করেছিল। এটি নিয়ে পশ্চিমা বিশ্বে ব্যাপক সমালোচনা সৃষ্টি হয়। আ'ফগা'নিস্তানের সেন্ট্রাল জোনের দায়িত্বপ্রাপ্ত মোহাম্ম'দ ইউসুফ নিউইয়র্ক পোস্ট'কে জানান , ইস'লামি আইন অনুসারে অ'পকর্মকারীদের শা'স্তি দেওয়া হবে।

ইউসুফ বলেন, যদি কোনও খু'নি ইচ্ছাকৃতভাবে খু'ন করে তাহলে তাকে হ'ত্যা করা হবে। কিন্তু যদি ইচ্ছাকৃত না হয় তাহলে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ পরিশোধসহ অন্যান্য শা'স্তি দেওয়া হতে পারে।

ওই তা'লেবান কর্মক'র্তা জানান, চু'রি করলে চো'রের হাত কে'টে ফেলা হবে এবং যারা অ'বৈধ যৌ'ন স'ম্পর্কে জ'ড়িত থাকবে তাদের ওপর পাথর নিক্ষেপ করা হবে। তিনি আরও বলেন, আম'রা চাই ইস'লামি আইন ও বিধিতে একটি শান্তিপূর্ণ দেশ । শান্তি ও ইস'লামি শাসন আমাদের একমাত্র চাওয়া।

তিনি আরও বলেন, কোন অ'প'রাধের বিচারের জন্যে চার সাক্ষী থাকতে হবে। যদি সাক্ষীদের বয়ানে সামান্য পার্থক্য থাকে তাহলে কোনও শা'স্তি হবে না। কিন্তু যদি সবাই একই কথা বলে তাহলে শা'স্তি হবে। সুপ্রিম কোর্ট এমন বিষয়ের দেখাশোনা করবে। তারা যদি দোষী হয়, তাহলে শা'স্তি পাবে।

Back to top button