রাতে ঘুমের সমস্যা দূর করতে তালিকায় রাখু'ন এই খাবারগুলো

শরীর সুস্থ রাখতে পর্যাপ্ত ঘুম ভীষণ জরুরি। আম'রা যে সময় ঘুমায় তখন বিশ্রাম পায় মস্তিষ্ক ও শারীরিক অঙ্গ প্রত্যঙ্গ।

অনেকেই অনেক চেষ্টা করেও সারাদিন ঘুমাতে পারে না। এতে করে দেখা যায় পরদিন সারাদিন মা'থা ধ'রা সহ আরও অনেক সমস্যা দেখা দেয়। ঘুম না হওয়ার সমস্যাকে ইনসমনিয়া বলে।

ঘুম না হওয়ার পিছনে মূলত অবসাদ, দুশ্চিন্তা, স্ট্রেস বা দীর্ঘক্ষণ ধরে মোবাইল বা কম্পিউটার ব্যবহার করা দায়ী। অনেকই ঘুম না হলে ঘুমের ওষুধ খেয়ে নেন, কিন্তু নিয়মিত ঘুমের ওষুধ খাওয়া খুব খা'রাপ অভ্যেস ও ঘুমের ওষুধের বিভিন্ন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। এ জন্য দৈনিক খাবারে পরিবর্তন আনলে খুব সহ'জেই ঘুম না হওয়ার সমস্যা কমে যায়।

আখরোট:

আখরোট হার্টের জন্য ভালো। এ ছাড়াও বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে যে আখরোটে উপস্থিত মেলাটোনিন পর্যাপ্ত ঘুম হতে সাহায্য করে।

কলা:

কলা ইনসমনিয়া রুখতে সাহায্য করে। কলাতে প্রচুর পরিমাণ ম্যাগনেসিয়াম, সেরোটোনিন ও মেলাটোনিন থাকে যা ঘুমের পক্ষে উপযোগী। ঘুমোতে যাওয়ার আগে শুধু কলা খেতে ইচ্ছে না করলে কলা দিয়ে স্মুদি বানিয়ে খেতে পারেন। একটি কলা, সামান্য ঠাণ্ডা দুধ ভালো করে ব্লেন্ড করে নিয়ে খেয়ে নিন।

তুলসী:

তুলসী পাতা বা তুলসী বীজ ঘুমের জন্য উপকারী। তুলসিতে থাকে হাইড্রা অ্যালকোহলিক এক্সট্র্যাক্ট ও এসেন্সিয়াল অয়েল যা ঘুমের জন্য উপকারী।

গরম দুধ:

ছোটবেলা থেকে ঘুমের আগে গরম দুধ খাওয়ার রীতি চলে আসছে। এটিও একটি উপকারী টোট'কা। চিকিৎসকদের মতে, দুধে রয়েছে অ্যমিনো অ্যাসিড ও ট্রিপটোফ্যান যা ঘুমের পক্ষে উপযোগী।

ডাবের পানি:

ডাবের পানি শরীর ঠাণ্ডা রাখে সেই সঙ্গে ডাবের পানিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম ও পটাশিয়াম যা পেশীকে শিথিল করে ও ভালো করে ঘুমোতে সাহায্য করে।

এ ছাড়াও ভালো ঘুমের জন্য মানসিক দুশ্চিন্তার পরিমাণ কমাতে হবে এবং মোবাইল ও কম্পিউটার এড়িয়ে চলুন। আর কাজের চাপ যতই থাক ঘুমের আগে কফি বা ক্যাফেইন জাতীয় পানীয় এড়িয়ে চলুন। এই অভ্যেসগুলো ভালো ঘুম হতে সাহায্য করবে।

তথ্যসূত্র: কলকাতা২৪।

Back to top button