শীতে শরীরে কেন সরিষার তেল মাখবেন?

দিন যতো যাচ্ছে কমছে তাপমাত্রা বাড়ছে শীত। শীতকালে ত্বকের শুষ্কতা এক বড় সমস্যা। শীতে বাতাসে আর্দ্রতা কম থাকায় এবং শরীরে ঘাম কম হওয়ার কারণে এটা ঘটে। যে কারণে শীতে সব মানুষরি ত্বক কম-বেশী ফেটে থাকে।

শরীরের এই সুস্কতার সমাধানও আছে। সরিষার তেল খুব সহ'জে শরীরের সুস্কতা দূর করবে। সরিষার তেল রান্নার জন্য যেমন উপকারী, তেমনি শীতকালে রূপচর্চায়ও ব্যবহার করা যায়। ত্বকের সৌন্দর্যের জন্য সরিষা তেলে থাকে প্রয়োজনীয় সব উপাদান।

শুকনো ত্বকের জন্য বিদেশী অলিভ অয়েল বাদ দিয়ে, নিন সরিষার তেল ব্যবহার করুন। গোসলের আধঘণ্টা আগে সারা গায়ে ভাল করে তেল ম্যাসাজ করুন। দেখবেন, দিনে দিনে ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়ছে। পাশাপাশি, এই শীতে শরীরের সুস্কতা কমে ত্বক থাকবে সজীব সতেজ।

হাতের তালুতে অল্প সর্ষের তেল ঘষে মুখে শরীরে মাখিয়ে নিন, সূর্যের ক্ষতিকারক আলট্রাভায়োলেট রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করবে।

সরিষার তেলে রয়েছে ভিটামিন এ, ই এবং বি কমপ্লেক্স। যে কারণে এটি মুখের রিংকল কমাতে সাহায্য করে।

ভেল্লা লেজার কেয়ার ও ভেল্লা এসথেটিকসের কনসালটেন্ট ডা. দিলরুবা সুলতানার পরাম'র্শ, কুসুম গরম পানি দিয়ে গোসল করলে বডির ন্যাচারাল ময়েশ্চার যেটা, সেটা ওয়াশ আউট হবে না। ন্যাচারালি বডি যে অয়েল প্রসিউস করছে, সেটা ওয়াশ আউট হবে না। তার ওপরে আপনি যে কোনও ন্যাচারাল অয়েল দিলেন, দ্যাটস এনাফ। আপনার শরীর ফাটা বা স্কিন ফাটা, এ ধরনের কোনও প্রবলেম হবে না

সরিষার তেল অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল ও অ্যান্টি ফাঙ্গাল উপাদানে ভরপুর, অ্যালার্জি ও রেশ প্রতিরোধ করতে সক্ষম। ত্বকের শুষ্কতা ও চুলকানি রুখতেও সরিষার তেল কার্যকরী ত্বকে ডার্ক স্পট, ট্যান বা পিগমেন্টেশন ঠেকাতে বেসন, দই, লেবুর রস আর সর্ষের তেল মিশিয়ে ১০-১৫ মিনিট মুখে লাগিয়ে রাখু'ন, তার পর ঠাণ্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সরিষার তেল ও নারকেল তেল মিশিয়ে ১০ মিনিট ত্বকে ম্যাসাজ করুন, ত্বক নরম, উজ্জ্বল থাকবে।

আপনার সরিষা তেল খাঁটি কিনা শরীরে সরিষা তেল ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই নিশ্চিত হয়ে নিন । নকল বা ভেজাল সরিষা তেল ব্যবহারে ত্বকের ক্ষতি হতে পারে।

Back to top button