কি ঘটেছিল কক্সবাজারের সেই হোটেলে, পাওয়া গেল সিসিটিভির ফুটেজ

রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ী থেকে কক্সবাজার বেড়াতে এসে সংঘবদ্ধ ধ'র্ষণের শিকার হয়েছেন এক নারী। তিনি জানান, স্বামী-সন্তানকে জি'ম্মি করে হ'ত্যার ভ'য় দেখিয়ে তাকে ধ'র্ষণ করেন তিন যুবক। খবর পেয়ে কক্সবাজার শহরের হোটেল-মোটেল জোনের জিয়া গেস্ট ইন নামের হোটেলের একটি কক্ষ থেকে বুধবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে তাকে উ'দ্ধার করে র‌্যা'­ব-১৫।

ওই ঘটনায় হোটেলের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে দুজনকে শনাক্ত করা হয়েছে।শনাক্ত দুই যুবক হলেন- কক্সবাজার শহরের বাহারছড়া এলাকার আশিকুল ইস'লাম ও আব্দুল জব্বার জয়া। আরেকজনের পরিচয় এখনো জানা যায়নি। আশিক চার মাস আগে জে'ল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। তিনি ছিনতাই, মা'দকসহ একাধিক মা'মলার আ'সামি। আজ বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) সংশ্লিষ্ট স্থানীয় কর্তৃপক্ষ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এদিকে ওই ঘটনার পর জিয়া গেস্ট ইনের সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে রেব। এতে দেখা যায়, তিন যুবক অটোরিকশায় এক নারীকে নিয়ে আসেন। দুজন ওই নারীর সঙ্গে থাকেন। আরেকজন হোটেলের রুম বুকিং দেন। সে সময় রিসিপশনে হোটেলের ব্যবস্থাপক ছোটন ছিলেন। এরপর তিন যুবক ওই নারীকে নিয়ে ওপরে চলে যান। রাত সাড়ে ১০টার দিকে যুবকরা বেরিয়ে গেলেও ওই নারীকে নামতে দেখা যায়নি।

ধ'র্ষণের শিকার গৃহবধু জানান, স্বামী-সন্তানকে জি'ম্মি করে হ'ত্যার ভ'য় দেখিয়ে তাকে ধ'র্ষণ করা হয়েছে। পরে কক্সবাজার হোটেল-মোটেল জোনের জিয়া গেস্ট ইন নামের রিসোর্ট থেকে তাদের উ'দ্ধার করে রেব।

জানা গেছে, বুধবার সকালে ঢাকার যাত্রাবাড়ী থেকে স্বামী-সন্তানসহ কক্সবাজার বেড়াতে এসে শহরের হলিডে মোড়ের একটি হোটেলে ওঠেন। বিকেলে যান সৈকতের লাবনী পয়েন্টে। সেখানে অ'পরিচিত এক যুবকের সঙ্গে তার স্বামীর ধাক্কা লাগে। এ নিয়ে কথা কা'টাকাটি হয়। এর জেরে সন্ধ্যার পর পর্যটন গলফ মাঠের সামনে থেকে ওই নারীর ৮ মাসের সন্তান ও স্বামীকে সিএনজি অটোরিকশায় করে কয়েকজন তুলে নিয়ে যায়। এ সময় আরেকটি সিএনজি অটোরিকশায় তাকে তুলে নেয় তিন যুবক।

পর্যটন গলফ মাঠের পেছনে একটি ঝুপড়ি চায়ের দোকানের পেছনে নিয়ে তাকে ধ'র্ষণ করে তারা। এরপর তাকে জিয়া গেস্ট ইন নামে একটি হোটেলে নিয়ে আরেক দফা ধ'র্ষণ করা হয়। ঘটনা কাউকে জানালে সন্তান ও স্বামীকে হ'ত্যা করা হবে জানিয়ে রুম বাইরে থেকে বন্ধ করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে ধ'র্ষকরা। পরে ওই নারী জাতীয় জরুরি সেবা নাম্বার ৯৯৯-এ কল করেন। পু'লিশ তাকে থা'নায় সাধারণ ডায়েরি করার পরাম'র্শ দেয়। পরে রেব এসে তাকে উ'দ্ধার করে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রেব-১৫ এর সিপিসি কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান বলেন, আ'সামিদের চিহ্নিত করা গেছে। তাদের আ'ট'কের চেষ্টা চলছে।

Back to top button