মতিঝিলের রাস্তা পছন্দ কেন, এর পেছনে দুরভিসন্ধি আছে: তথ্যমন্ত্রী

মতিঝিলে রাস্তায় বিএন‌পির সমাবেশ করার পেছনে দুরভিসন্ধি রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ডা. হাছান মাহমুদ।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে মিশরে অনুষ্ঠিত ‘কপ-২৭ সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি’ নিয়ে বাংলাদেশ ক্লাইমেট চেঞ্জ জার্নালিস্ট ফোরামের সঙ্গে মতবিনিময় সভা শেষে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপিকে জায়গা দেওয়া হয়েছে। পু'লিশের সঙ্গে আলোচনার সময় বিএনপি সোহরাওয়ার্দী উদ্যান চেয়েছিল। যেখানে বাংলাদেশের সব বড় বড় জনসভা হয়েছে। যে ময়দান থেকে জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার ডাক দিয়েছেন, যে ময়দানে পা'কিস্তানিরা আত্মসম'র্পণ করেছে, যেখানে অ'তীতেও তারা অনেক জনসভা করেছে; আম'রা তো নিয়মিতই করি- সেখানে তাদের যেতে অস্বীকৃতি কেন, অনিহা কেন? তারা রাস্তায় শুধু জনসভা করতে চায়।’

‘মতিঝিলের রাস্তা তাদের এত পছন্দ কেন- এর পেছনে নিশ্চয়ই দুরভিসন্ধি আছে। তারা সমাবেশ করতে চায় না। ইস্যু তৈরি করতে চায়, বিশৃঙ্খলা তৈরি করতে চায়। কেউ এ চেষ্টা চালালে দলের নেতারা জনগণকে নিয়ে তা প্রতিহত করবে।’ বলেন তিনি।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘রাস্তায় জনসভা করে তারা গাড়ি ভাঙচুর করতে চায়। তারা জনজীবনে বিপত্তি ঘটাতে চায়। নাগরিকরা রাস্তায় জনসভা করার বি'রুদ্ধে। কিন্তু তারা রাস্তা চেয়ে বেড়াচ্ছে। এটি তো কোনোভাবেই একটি দায়িত্বশীল রাজনৈতিক দলের কাজ হতে পারে না। মাঠের বিকল্প মাঠ হতে পারে। সেটা বলে না। বলে এ রাস্তা, না হয় ওই রাস্তা। মতিঝিল ঢাকা শহরের সবচাইতে ব্যস্ততম সড়ক। মতিঝিলের রাস্তা কেন তাদের এত পছন্দ? যেখানে অনেক ব্যাংক-বীমা আছে। যেখানে অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আছে। এটা কেন তাদের এত পছন্দ? এর পেছনে একটি গভীর ষড়যন্ত্র এবং দুরভিসন্ধি আছে।’

প্রকৃতপক্ষে বিএন‌পি নেতারা জনসভা করতে চায় না মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এটিকে ইস্যু বানাতে চায় এবং দেশে একটি বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি করার চেষ্টায় তারা আছে। আমাদের সরকার দেশে কাউকে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে দেবে না। যেহেতু রাষ্ট্র পরিচালনা করছে একটি দলীয় সরকার, সেহেতু আমাদের দলেরও কর্তব্য আছে। দলের নেতাকর্মীদের কর্তব্য আছে। কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অ'পচেষ্টা চালালে আমাদের দলের নেতাকর্মীরা দেশের মানুষকে সঙ্গে নিয়ে তাদের প্রতিহত করবে।’

বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী ও ইশরাক হোসেনের গ্রে'ফতারি পরোয়ানা জারির বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আ'গুন স'ন্ত্রাসীরা তো বিএনপির নেতাকর্মী। এটি করার জন্য বিএনপি নেতারাই নির্দেশ ও অর্থ দিয়েছিলেন। এটির ভিডিও এবং অডিও রেকর্ড আমাদের কাছে আছে। তাদের হাতে আ'গুন ও মানুষের র'ক্ত লেগে আছে। তাদের বি'রুদ্ধে তো মা'মলা আছে। জামিন বাতিল হলে তাদের বি'রুদ্ধে পু'লিশ ব্যবস্থা নেবে। তাদের জামিন আ'দালত বাতিল করেছে। এখানে সরকারের কোনো হাত নেই।’

Back to top button